TRENDING

ফাইভারে কাজ পাওয়ার কৌশলদ্রুত কাজ পাওয়ার টেকনিক গুলোর মধ্যে অন্যতম প্রধান হলো 'ফাইভার স্কিল টেস্ট ' এ পাশ করা বা, কৃতকার্য হওয়া । যারা ফাইভার এ নতুন, তাদের জন্য প্রথম প্রথম অর্ডার পাওয়া যে কি সোনার হরিণ তা একমাত্র ভুক্তভোগী ছাড়া আর কেউ জানে না। এটি ফাইভারে কাজ দ্রুত কাজ পাওয়ার নিয়ামক গুলোর মধ্য খুবই কার্যকর একটি টেকনিক। আজ ফ্রিল্যান্সিং গিক এই পোস্ট এর মাধ্যমে আলোচনা করবো কিভাবে আপনি Fiverr এ স্কিল টেস্ট দিলে 💯 এ ১০০% পাশ করতে পারবেন সেই সব বিষয় গুলো নিয়ে। তো কথা না বাড়িয়ে চলুন শুরু করি।

    ফাইভার টেস্ট কি?

    প্রথমেই জেনে নিই 'ফাইভার টেস্ট কি?' আসলে ফাইভার টেস্ট বলতে কি বুঝায়? অনেকের কাছেই এর উত্তর জানা আছে। তবুও যারা ফ্রিল্যান্সিং এ একেবারেই নতুন তাদের জন্য বলতে চাই, এটি হলো ফাইভার এর রুলস বা, ফাইভারের নিয়ম-কানুন অনুযায়ী আপনাকে টেস্ট বা, পরীক্ষা দিতে হবে এবং এই পরীক্ষায় পাশ করার উপর আপনার প্রোফাইল বা, ফাইভার একাউন্ট এর অথোরিটি নির্ভর করে।

    আপনি টেস্ট এ পাশ করলে আপনার পাশের স্কোর আপনার প্রোফাইল এ দেখাবে, আপনার প্রোফাইল এ এক্সট্রা ভ্যালু এড হবে। আপনার এই পাশের স্কোর অনেক ক্ষেত্রে ফাইভারে আপনার অর্ডার পাওয়ার সম্ভাবনা কয়েকগুন বাড়িয়ে দিবে।

    সুতরাং বুঝতেই পারছেন ফাইভার স্কিল টেস্ট আপনার জন্য কতটা দরকারী।

    fiverr-skill-test-pass-ninja-technique-freelancing-geek

    ফাইভার স্কিল টেস্ট বলতে কি বুঝায়?

    ফাইভার এ কিছু কিছু স্কিল টেস্ট সবার জন্য সমান হলেও স্কিল অনুযায়ী অর্থাৎ আপনি যেই স্কিল অনুযায়ী প্রোফাইল সাজিয়েছেন, স্কিল অনুযায়ী গিগ পাবলিশ করবেন সেই স্কিল অনুযায়ী আপনাকে টেস্ট দেয়ার জন্য ফাইভার থেকে সাজেস্ট করবে। আগে কিছুটা শীথিল থাকলেও এর রুলস এখন অনেক বেশি কড়া।

    ফাইভার স্কিল টেস্ট কেন দিবো?

    বায়ার বা, ক্লাইন্ট যখন ফাইভারে এসে অভিজ্ঞ ও যোগ্য ফ্রিল্যান্সার খুঁজবে তখন যেসব ফ্রিল্যান্সার এর প্রোফাইল ভাল অর্থাৎ ফাইভার স্কিল টেস্ট এর স্কোর ভাল তাদের কে কাজ দেয়ার জন্য বেশি আগ্রহ প্রকাশ করবে। তাদেরকেই আগে knock করবে এবং হায়ার করবে। এর মাধ্যমে বায়ারকে সহজে আকৃষ্ট করা যায়। সুতরাং এটা সহজেই অনুমেয় যে এটা আপনার ফাইভার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ একটা টপিক।

    বর্তমানে নির্দিষ্ট কিছু স্কিল এ আপনি গিগ পাবলিশ করার আগেই আপনাকে এই টেস্ট এ পাশ করা বাধ্যতামূলক হয়ে দাঁড়িয়েছে। আপনি গিগ তৈরি শেষে যখন গিগ ফাইনালি পাবলিশ করতে যাবেন তখন আপনাকে আটকে দিবে। টেস্ট এর অপশন চলে আসবে এবং এটাতে পাশ না করলে আপনি গিগ পাবলিশ করতে পারবেন না। তাহলে বুঝুন এবার আপনি ফাইভার স্কিল টেস্ট কেন দিবেন? এবং কেন আপনাকে ফাইভার স্কিল টেস্ট এ পাশ করতে হবে?

    ফাইভার-স্কিল-টেস্ট-ফ্রিল্যান্সিং-গিক

    ফাইভারে কি কি বিষয়ের উপর স্কিল টেস্ট দিতে হয়?

    এখন আমরা দেখে নিবো ফাইভারে কত গুলো সাবজেক্ট এর উপর স্কিল টেস্ট দেয়া যায় বা, দিতে হয়।

    • U.S English Basic Test
    • Adobe Photoshop/Illustrator
    • WordPress 5.1
    • Social Media Marketing Test
    • Microsoft Excel
    • English Language (Words and Phrases)
    • Virtual Assistant
    fiverr-skill-test-virtual-assistant-freelancing-geek

    এছাড়াও আরো বিস্তারিত লিস্ট দেখতে ঘুরে আসুন ফাইভার এর সাপোর্ট লিংক থেকেঃ Taking a Skill Test

    ফাইভার স্কিল টেস্ট এ কত গুলো প্রশ্ন থাকে?

    আমার জানামতে সাধারণত এখানে মোট ৪০ টি প্রশ থাকে। তবে এটা নির্ভর করে বিষয়ের উপর। বিষয় বা, সাবজেক্ট অনুসারে প্রশ্ন কম বা, বেশি থাকে। প্রতিটি প্রশ্নের জন্য ১ মিনিট করে সময় বরাদ্ধ থাকে। অর্থাৎ প্রশ্ন যদি ৪০ টি হয় তাহলে আপনি উত্তর দেয়ার জন্য প্রতিটি প্রশ্নের জন্য ১ মিনিট করে মোট ৪০ মিনিট সময় পাবেন। ৪০ মিনিট সময়ের মধ্যেই আপনাকে সকল উত্তর দিতে হবে।

    ফাইভার স্কিল টেস্ট এর রুলস গুলো কি কি?

    ফাইভারে আপনি স্কিল টেস্ট দিতে গেলে আপনাকে কিছু আইন-কানুন মানতে হবে; সে গুলো কি কি?

    • প্রতিটি টেস্ট এর জন্য সাধারণত ৪০ মিনিট সময় বরাদ্ধ থাকবে।
    • সাবজেক্ট এর উপর ভিত্তি করে সাধারণত সর্বমোট ৪০ টি প্রশ্ন থাকবে।
    • টেস্ট শুরু করার পর আপনি স্ক্রিন বা, উইন্ডো মিনিমাইজ/হাইড করতে পারবেন না।
    • কোন শর্টকাট মেনু যেমনঃ মাইজ এ রাইট-ক্লিক, কিংবা কোন কিবোর্ড শর্টকাট ইউজ করা যাবেনা।

    এ নিয়ে আরো জানার জন্য ঘুরে আসুন ফাইভার এর সাপোর্ট লিংক এঃ Learn from Fiverr and Skill Tests

    কিভাবে ফাইভার স্কিল টেস্ট দিলে ১০০% পাস করবো?

    এখানে ১০০% পাশ করতে হলে আপনাকে কিছু ট্রিক্স এপ্লাই করতে হবে। যারা নতুন তারা অনেকেই সাহস করে টেস্ট দিতে গেলেও প্রায়ই দেখে যায় ফেল করে আসতে। যার ফলে পরবর্তী টেস্ট এর জন্য আরো ৩ মাস বা, ৯০ দিন অপেক্ষা করা লাগে। গিগ পাবলিশ না করতে পারলে তো কোন কাজ পাওয়া যাবে না। তাই ফাইভার স্কিল টেস্ট দেয়ার আগে একটু ভাববেন, প্লিজ। এই পোস্ট টি পড়লে আপনি আসলেই জানতে পারবেন কিভাবে আপনি স্কিল টেস্ট দিলে ১০০ তে ১০০ অর্থাৎ 💯% পাশ করতে পারবেন;

    fiverr-skill-test-imamuddinwp

    ফাইভার স্কিল টেস্ট এ পাশ-মার্ক কত?

    Fiverr Test Passing Marks: আপনি জানলেন ৪০ টি প্রশ্নের জন্য ৪০ মিনিট সময় বরাদ্ধ। এখন আসি 'কত মার্ক বা, কত নাম্বার পেলে ফাইভার টেস্ট এ পাশ করা যাবে? এর সহজ উত্তর হলো, মোট নাম্বার বা, সর্বোচ্চ নাম্বার হলো ১০। এই ১০ মার্ক এর ভিতর আপনাকে ৬ পেতে হবে। এর কম নাম্বার পেলে আপনি ফেল। 😞

    ফাইভার স্কিল টেস্ট এ আপনি মিনিমাম ৬০%-৮০% প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে পারলে উত্তীর্ণ হতে পারবেন।

    সুতরাং আপনাকে স্কিল টেস্ট এ পাশ করার জন্য মিনিমাম ৬ বা, ৬ এর বেশি নাম্বার পেতে হবে।

    ফাইভার স্কিল টেস্ট নিয়ে দুটি ভ্রান্ত ধারনাঃ

    অনেকেই চালাকি করতে গিয়েও ধরা খেতে হয়। পাশ করার আশায় কোন বড় ভাইয়ের সাহায্য নেন যিনি ইংরেজি ভাল জানেন। এই টেকনিক এপ্লাই করে অনেকেই পাশ করলেও ফেল এর পরিমান বেশি।

    কেউ কেউ আবার পাশাপাশি দুটি পিসি/ল্যাপ্টপ কিংবা মোবাইল নিয়ে চেষ্টা করেন, তাতেও লাভ হয় না বললেই চলে।

    ফাইভার স্কিল টেস্ট এ পাশ করার ১০০% কার্যকর দুটি নিঞ্জা টেকনিক

    এবার আসি আসল ঘটনায়। এখানে আমি দুটি কার্যকর পদ্ধতি বা, টেকনিক শেয়ার করবো যা এপ্লাই করলে আপনি ১০০ তে ১০০ পেয়ে এই টেস্ট এ পাশ করবেন, ইনশাআল্লাহ্‌! এই টেকনিক আসলে অনেকে জানলেও যারা নতুন তাদের অনেক কাজে আসবে। তো চলুন, কথা না বাড়িয়ে পদ্ধতি দুটি একে একে জেনে নেয়া যাক।

    পদ্ধতি#০১ঃ ইউটিউব ভিডিও দেখে স্কিল টেস্ট এ পাশ

    হ্যাঁ! এটি সহজ এবং কার্যকর পদ্ধতি। খাতা কলম নিয়ে বসে পড়ুন। এবার ইউটিউবে আপনার স্কিল অনুযায়ী অর্থাৎ আপনি যেই টপিকে টেস্ট দিবেন সেটি লিখে সার্চ করুন। এবার ভিডিও ফিল্টার করুন; গত সপ্তাহ, গত মাস এভাবে। মানে কথা সাম্প্রতিক ভিডিও গুলো পেতে সার্চ করবেন। অনেক ভিডিও পাবেন ফাইভার টেস্ট সংক্রান্ত।

    ভিডিও দেখার পাশাপাশি খাতা কলমে লিখে ফেলুন প্রশ্নের মেইন টপিক এবং উত্তর গুলো। দুই বা, তিনটা ভিডিও দেখে আপনি এভাবে নোট করলে বুঝতে পারবেন উত্তর গুলো কত সহজ হয়ে গেছে আপনার জন্য। এখন ফাইভার টেস্ট এ পাশ করা আপনার জন্য পান্তা ভাত বা, মামুলি একটা ব্যাপার!!!


    নতুনদের জন্য ফাইভার রুলস 2021 - Fiverr Rules Bangla For New


    পদ্ধতি#০২ঃ গুগল থেকে পাশ করুন ফাইভারের স্কিল টেস্ট এ

    ঠিক একই ভাবে আপনার টেস্ট টপিক অনুযায়ী গুগলেও একই ভাবে সার্চ করুন এবং ফিল্টার করুন। প্রথম চার পাঁচ টা পেইজ এ গেলে উত্তর গুলো পাবেন আশাকরি। এবার উত্তর গুলো প্রিন্ট করে কিংবা হাতে লিখে পড়াশোনা করুন, হাতে লিখলে প্রশ্নের সঠিক উত্তর গুলো আপনার এমনিতেই মুখস্ত হয়ে যাবে। এরপর স্কিল টেস্ট দিন। আপনার ফাইভার স্কিল টেস্ট এ পাশ করা ঠেকাবে কে?

    নিচে আমি ফাইভার স্কিল টেস্ট এ পাশ করার ১০০% কার্যকর দুটি নিঞ্জা টেকনিক নিয়ে একটি ভিডিও দিয়েছি, ভিডিও দেখে আপনি শিখে নিতে পারেন কিভাবে ফাইভার স্কিল টেস্ট এ ১০০% পাশ করবেন

    Disclaimer:

    কেউ কেউ বলতে পারেন এটা এক ধরনের চুরি! এটা এক ধরনের প্রশ্ন-পত্র ফাঁস! কিংবা এটা এক ধরনের জালিয়াতি! তাদের উত্তরে আমি বলতে চাই, আসলে এটা চুরি, প্রশ্ন-পত্র ফাঁস, জালিয়াতি এই টাইপের ট্যাগ দিবেন না প্লিজ। এখানে আমি খাতা কলম নিয়ে লিখে ও পড়ে অর্থাৎ পড়াশোনা করে তবেই ফাইভার স্কিল টেস্ট দেয়ার জন্য সাজেস্ট করেছি। এতে আপনার অনেক কিছুই জানা হবে, বুঝা হবে। এছাড়াও আপনি জেনে থাকবেন যে, সৃজনশীল পদ্ধতিতে মূলত প্রশ্নের ভিতরেই উত্তর নিহিত থাকে, সুতরাং এটাকে আপনি স্কিল টেস্ট এ পাশ করার একটা সৃজনশীল পদ্ধতি বলতে পারেন।

    Conclusion:

    আমি আশাকরি। এবং বিশ্বাস করি উপরে দেখানো ফাইভার স্কিল টেস্ট এ পাশ করার ১০০% কার্যকর দুটি নিঞ্জা টেকনিক আপনার ফাইভার ফ্রিল্যান্সিং একটি নতুন মাইলফলক হিসেবে যুক্ত হবে। আপনার কোন পরামর্শ বা, গুরুত্বপূর্ণ কোন মন্তব্য থাকলে অবশ্যই জানাবেন। ধন্যবাদ ফ্রিল্যান্সিং গিক এর এই পোস্ট টি পড়ার জন্য। আপনার ফাইভার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনায়... ।

    Post a Comment

    নবীনতর পূর্বতন